,

Home » Top » দুবৃর্ত্তদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

দুবৃর্ত্তদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

সূচনাতেই আমরা ও আমার পরিবারের সদস্যদের সালাম/নমস্কার গ্রহন করবেন। আমি চট্টগ্রামের সাতকানিয়া ৪ নং ওয়ার্ডের চিববাড়ি ডাক্তার পাড়ার মৃত আমির হামজার পুত্র মোহাম্মদ আলী হই। আমার এলাকার চিহিৃত কয়েকজন দুবৃর্ত্তের হামলায় আমার বাড়িঘর ও সীমানা দেওয়াল ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার পাশাপাশি তাদের অব্যহত প্রাণনাশের হুমকিতে প্রতিটি মুহুর্তে নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছি। পুলিশ, আদালতসহ বিভন্ন আইন শৃংখলা বাহিনীর সেক্টরে ধর্ণা দিয়ে আমি আজ হাফিয়ে উঠেছি। কোন প্রতিকার না পেয়ে অবশেষে নিরুপায় হয়ে আজ আপনাদের শরণাপন্ন হয়েছি। আপনাদের এই মূল্যবান সময় নষ্ট করে একটি নিরীহ মানুষের ডাকে আজকের এ সম্মেলনে উপস্থিত হওয়ার জন্য আপনাদের আবারো ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।
হে জাতির বিবেক,
আমার এলাকার মৃত সিরাজুল হকের পুত্র আজিজুল হক, মাহমুদুল হক, মৃত নছরত আলীর পুত্র নুরুল আলম,নুরুল ইসলাম, নুরুন্নবী, মৃত আমির হামজার পুত্র নুরুল হক, মৃত মোস্তাফিজুর রহমানের পুত্র মুজিবুর রহমান, আমিনুল ইসলাম, মৃত এয়াকুব সিকদারের পুত্র আবুল কাসেম গত ১২ মার্চ হঠাৎ আমার বাড়িতে প্রবেশ করে। এরা কোন কিছু বুঝে উঠার আগে একযোগে লোহাড়র হাতুড়ি সহ অন্যন্য দেশীয় তৈরী লোহার সরঞ্জাম নিয়ে আমার বাড়ির বাউন্ডারি দেওয়াল ভাংচুরের চেষ্টা চালায়। এতে আমার এক লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধিত হয়। এ সময় আমি ও আমার পরিবারের লোকজন বাধা দিলে এমনকী সবার আত্মচিৎকারে তারা ঘটনাস্থল ত্যাগ করে । এ সময় এরা আমাকে ও আমার পরিবারের সকল সদস্যকে রাতে আঁধারে হত্যা করার হুমকি দেয়। এছাড়া লাশ গুম করে ফেলা হবে বলেও শাসিয়ে দেয়। যার ফলে প্রতিনিয়ত আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এ বিষয়ে অতিরিক্ত জেলা মেজিস্ট্রেট আদালত (দক্ষিণ) চট্টগ্রাম মিছ মামলা নং- ৬৮৮/২০১৮ (সাতকানিয়া) বিচারধীন রয়েছে। আমি আপনাদের লেখনীর মাধ্যমে আমার বাড়িতে এসব দুবৃর্ত্তদের প্রবেশ নিষেধ করার জন্য ফৌজদারী কার্যবিধি আইনের ১৪৫ ধারামতে প্রসিডিং ড্র করতে বিনীত অনুরোধ করছি।
আমি বর্তমানে দানপত্রমূলে প্রাপ্ত ও ক্রয় সূত্রে মোট ১৩ গন্ডা নালিশী সম্পত্তিতে এক তলা বিল্ডিং নির্মান করে বসবাস করে আসছি। বিল্ডিংয়ের সামনে বিল্ডিং ঘেষে পূর্ব পশ্চিমে লম্বা উঠান রয়েছে। উঠানের দক্ষিণ পাশে পুকুর রয়েছে। মোট ১৩ গন্ডা সম্পত্তি পাকা বাউন্ডারি দেওয়াল নির্মাণ করা ছিল। বিশেষ করে ১৯৯০ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর দানপত্র নং-৪২০৪ মূলে, ২০০১ সলের ১৮ মার্চ ক্রয়কৃত কবলা নং ৮৬৩ মূলে ও ২০১১ সালের ১৩ নভেম্বর ক্রয়কৃত কবলা নং ৩৭১৬ মূলে মোট এই ১৩ গন্ডা সম্পত্তি আমি ভোগ দখল করে আসছি।
হে কলম সৈনিক,
এরপরও তারা ক্ষান্ত হয়নি। গত ১২ এপ্রিল মুখোশধারী অজ্ঞাতনামা ৩০/৪০ দুবৃর্ত্ত আমার বাড়িতে প্রবেশ করে লোহার হাতুড়ি থেকে শুরু করে বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে আমার বাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় আমরা আতংকে নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করি। এ সময় দুবৃর্ত্তরা বাড়ির পশ্চিম পাশের ১৮ ফুট বাউন্ডারি দেওয়াল ও পূর্ব পাশের ১৫ ফুট দেওয়াল ভেঙ্গে দেওয়ালের ইটের টুকরা ও আস্তরের টুকরো গুলি পাশের পুকুরে ফেলে দেয়। এ সময় বিভিন্ন ফলের গাছ কেটে পুকুরে ফেলে দিয়ে তান্ডব সৃষ্টি করে। এছাড়া ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে আলমিয়ার থেকে নগদ টাকা নিয়ে যায়। পরিবারের সদস্যদের মারধর করে। এতে আমার দুই লক্ষ টাকার মত ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এরপর গত ১৯ এপ্রিল সিনিয়র জুড়িসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালত -৫ চট্টগ্রামে আরো একটি সিআর মামলা (নং-১২০/১৮) সাতকানিয়া দায়ের করি। বর্তমানে মামলাটি বিজাচারাধীন রয়েছে।
এদের হুমকিতে আমরা প্রতিনিয়ত মৃত্যুভয়ে রয়েছি। যে কোন মুহুর্তে আমাদের হত্যা করতে পারে । বর্তমানে আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। এছাড়া এসব দুবৃর্ত্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে বৃহত্তর চট্টগাম বিভাগের বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন লিগ্যাল এইড কমিটির চেয়ারম্যান বরাবরে একটি আবেদন জানালে তিনি তদন্ত স্বাপেক্ষে এটির প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে উল্লেখিতদের জুলুমবাজি, হামলা, ক্ষতিসাধনের কথা উল্লেখ করা হয়।
আপনাদের লেখনী শক্তির মাধ্যমে পৃথিবীর এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে মানব সমাজ সবকিছু জানতে পারে। আপনারাই পারেন দেশের মধ্যে অন্যায় অবিচার কলেমের আঘাতে খান খান করে দিতে। দুস্কৃতকারীদের প্রতিহত করতে। তাই আপনাদের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ সংশ্লিষ্টদের কাছে আমি ও আমার পরিবারের আরজি, আমারা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। যে কোন মুহুর্তে এরা আমাদের হত্যা করতে পারে বাড়ি দখলের উদ্দেশ্যে। এসব দুবৃর্ত্তদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করতে আপনাদের মাধ্যমে আবেদন জানাচ্ছি ।
পরিশেষে বন্ধুরা,
এমতাবস্থায় সরেজমিনে তদন্ত পূর্বক এসব দুবৃর্ত্তদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য অদ্যকার এ সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সকল সাংবাদিক বন্ধুদের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আকুল আবেদন জানাচ্ছি।

Leave a Reply