,

Home » Top » ছাত্রলীগ সকল আন্দোলন সংগ্রামে একটি মুত্ত প্রতিক স্বাক্ষী : গণপূর্তমন্ত্রী

ছাত্রলীগ সকল আন্দোলন সংগ্রামে একটি মুত্ত প্রতিক স্বাক্ষী : গণপূর্তমন্ত্রী


ফটিকছড়িতে ছাত্রলীগের বার্ষিক সম্মেলন গত (২৬ জানুয়ারী) শুক্রবার বিকেলে ফটিকছড়ি বিশ্ববিদ্যালয় কলেজমাঠে অনুষ্টিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রানালয়ের মন্ত্রি,আ.লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। ঐতিহ্যবাহি ছাত্রলীগ সকল আন্দোলন সংগ্রামে একটি মুত্ত প্রতিক স্বাক্ষী বলে আখ্যায়িত করে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রি বলেছেন, বাংলাদেশের আগে যে আন্দোলন শুরু হয়েছিল সেটি ছাত্রলীগের হাত ধরে হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া এ ছাত্রলীগ নেতৃত্বে দিয়েছে স্বাধীনতা যুদ্ধে, ভাষা অন্দোলনে। আজ ২০বছর পর ছাত্রলীগ সম্মেলন হচ্ছে ফটিকছড়িতে। আমি ৯২সালে ছাত্রলীগের সম্মেলনে এসেছিলাম। তখন জামায়াত শিবিরের হামলার শিকার হয়েছিলাম, নির্বিচারে গুলি করেছিল। বশরকে গুলি হত্যা করেছিল। আমাকেও হত্যা করতে ছেয়েছিল। আল্লাহর রহমতে সেই দিন বেঁেচ যায়।
বিএনপির চেয়ারর্পাসন খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ৫জানুয়ারীর মত পেট্টোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করেছে তা আর সুযোগ দেয়া হবে না। ফখরুল বলেছিল আমরা আগামী নির্বাচনে ৮%ভোট পাবো না। আর আপনারা কত পারসন পান সেটা আগে হিসাব করেন।
ফটিকছড়ির নির্বাচন এলাকাসহ অন্যানো নির্বাচন এলাকা ব্যাপারে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অধীনে একটা বোর্ড আছে, উনার এজেন্সী রির্পোট আছে, এ চার বছরের ৩শত এমিপর হিসাব উনার কাছে গেছে, সেই হিসেব অনুযায়ী এলাকায় তিনি মনোয়ান দেবে। ১৪ দলও থাকবে,সব থাকবে কিন্তু আপনি যদি টি আর কাবিকার গম আতœসাৎ করেন আর আপনার ডিও লিটার দিয়ে টাকা আতœসাৎ করেন তাহলে মনোনয়ন দেয়া হবে না।
উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাহেদুল আলম সাহেদ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধক ছিলেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বখতিয়ার সাঈদ ইরান। উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন ও মাইনুল করিম সাকীর যৌথ সঞ্চালায় বিশেষ বক্তা ছিলেন উত্তর জেলা ছাত্রলীগের সাধরণ সম্পাদক আবু তৈয়ব। বিশেষ অতিথি ছিলেন,উত্তর জেলা আ.লীগের সভাপতি নুরুল আলম চৌধুরী, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আফতাব উদ্দিন চৌধুরী, এটিএম পেয়ারুল ইসলাম, খাদেজাতুল আনোয়ার সনি,উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী, ব্যারিস্টার তানজীবউল আলম,জেলা আ.লীগের সদস্য সৈয়দ মুহাম্মদ বাকের,উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক শাহ আলম সিকদার, কেন্দ্রয়ী ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মাইনুল ইসলাম রানা, সাকিবুল হাসান সুইম,জামাল পাশা শওকত,জামাল উদ্দিন, শুভ সিকাদার প্রমূখ। এর আগে সভাপতি প্রার্থী জামাল উদ্দিন এর নেতৃত্বে মিছিল সহকারে সম্মেলনে অংশ নেন হাজারো ছাত্র নেতা। এছাড়া স্ব স্ব প্রার্থীরা মিছিল সহকারে সম্মেলনে অংশ নিতে দেখা যায়।
সম্মেলন শেষে আগামি ২৮জানুয়ারি সভাপতি/সম্পাদক প্রার্থীদের নিয়ে উপজেলা আ.লীগ অফিসে বসে ভোটের মাধ্যেমে নির্বাচন করা হবে বলে ঘোষনা দেন নেতৃবৃন্দরা।

Leave a Reply