,

Home » Top » নিরন্তর জ্ঞান চর্চা ও বহুমাত্রিক জ্ঞান অর্জনের বিকল্প নেই : হাটহাজারী ছাত্র সমিতি’র সংবর্ধনায়-এম.এ. সালাম

নিরন্তর জ্ঞান চর্চা ও বহুমাত্রিক জ্ঞান অর্জনের বিকল্প নেই : হাটহাজারী ছাত্র সমিতি’র সংবর্ধনায়-এম.এ. সালাম

সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে সুশিক্ষিত জনগোষ্ঠী প্রয়োজন। মননশীল, দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক মনোভাব, বিজ্ঞানমনস্ক সমাজ গঠন, তথ্য প্রযুক্তিতে পারদর্শী হতে হবে নতুন প্রজন্মকে। গতানুগতিক শিক্ষাই নয় বরং মানসম্মত সুশিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে। নিরন্তর জ্ঞান চর্চা ও বহুমাত্রিক জ্ঞান অর্জনে সচেষ্ঠ থাকতে হবে শিক্ষার্থীদের। মনের অন্ধকার-সংকীর্ণতা পরিহার করে সত্য ও ন্যায়ে অধিষ্ঠিত হয়ে সর্বোপরি জ্ঞানান্বেষণে ব্রতী থাকতে হবে নতুন প্রজন্মকে।
অদ্য ১৪ জানুয়ারি ২০১৮ চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়তনে হাটহাজারী ছাত্র সমিতি, চট্টগ্রাম’র উদ্যোগে ২০১৭ সালে এস.এস.সি/সমমানের পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পাওয়া শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম উপরোক্ত বক্তব্য রাখেন।
সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক সদস্য অ্যাডভোকেট মোস্তফা আনোয়ারুল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ ও লেখিকা, চট্টগ্রাম মহিলা বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রিন্সিপাল তহুরিন সবুর ডালিয়া। স্বাগত বক্তব্য রাখেন হাটহাজারী ছাত্র সমিতি’র সভাপতি মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী পেয়ারু। বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট রতন কুমার রায়, আল্লামা দোস্ত মুহাম্মদ (রঃ) ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান, কলামিস্ট সৈয়দ মুহাম্মদ জুলকরনাইন, ফুলকলি’র জিএম এম এ সবুর, হাটহাজারী উন্নয়ন ফোরামের সভাপতি এডভোকেট মাসুদুল আলম বাবলু, ব্যাংকার মীর মোহাম্মদ ইমরুল কায়েস, লায়ন এম এ হোসেন বাদল, বিশিষ্ট সাংবাদিক আরিচ আহমেদ শাহ্, উন্নয়ন কর্মী ও সংগঠক নোমান উল্লাহ বাহার, ইকো ফ্রেন্ডস্’র সাংগঠনিক সম্পাদক কাইয়ুমুর রশিদ বাবু, চট্টগ্রাম আইন কলেজ ছাত্র সংসদের জিএস শাহাদাত হোসেন, ছাত্রনেতা বোরহান উদ্দিন গিফারী, প্রজন্ম বিজ্ঞান ভাবনা’র সভাপতি আবু ছিদ্দিক, ইয়াছির সামিত, মোঃ ওসমান, ইমতিয়াজ, তুষার, মাকসুদ প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে অধ্যক্ষ তহুরিন সবুর ডালিয়া বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্মকে আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। পড়ালেখার পাশাপাশি মানব সেবায়ও নিয়োজিত থাকা দরকার।
চট্টগ্রাম আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. রতন কুমার রায় বলেন, দেশপ্রেম ব্যতিত সফলতার শীর্ষে পৌছা সম্ভব নয়। শিক্ষার্থীদের সুশিক্ষিত ও যোগ্য নাগরিক হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার বিকল্প নেই। এড. মোস্তফা আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, মানুষ তার স্বপ্নকে প্রতিনিয়ত ছাড়িয়ে যায়। এ প্রজন্মের মাধ্যমে বাঙালির তার আজন্ম লালিত, সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠা করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন আনোয়ারুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে আলোচনা পর্ব শেষে কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এম এ সালাম ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

Leave a Reply