,

Home » Top » ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই

ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই

মুক্তিযোদ্ধা ও ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী আর নেই। মঙ্গলবার দুপুর পৌনে একটার দিকে তিনি রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থান মারা যান। প্রিয়ভাষিণীর মেয়ে ফুলেশ্বরী এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘গত ২২ ফেব্রুয়ারি মাকে ল্যাবএইডে ভর্তি করানো হয়। রোববার তার পায়ে জটিল অপরারেশন করা হয়। এরপর দুপুর ১২টার দিকে মায়ের প্রেসার নীল হয়ে যায়। দুপুর পৌনে একটার দিকে চিকিৎসকরা মাকে মৃত ঘোষণা করেন।’
মৃত্যুকালে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান স্বাধীনতা পুরস্কারে ভূষিত প্রিয়ভাষিণীর বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। তিনি তিন ছেলে, দুই মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।
অবশ্য ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী দীর্ঘদিন যাবৎ উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস ও কিডনি জটিলতায় ভুগছিলেন। গত বছরের ৪ নভেম্বর নিজের বাসায় বাথরুমে পড়ে গোড়ালিতে আঘাত পান তিনি। তখন তার গোড়ালির একটি হাড় স্থানচ্যুত হয়।
হাসপাতালে ভর্তির পর হার্ট অ্যাটাক হলে তার হৃদযন্ত্রে স্থায়ীভাবে পেসমেকার বসাতে হয়। এরপর ডিসেম্বরের শেষে আবারও গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ভর্তি করা হয় ল্যাবএইড হাসপাতালে। চিকিৎসা শেষে বাসায় ফেরেন। এরপর আবার অসুস্থ হলে ২২ ফেব্রুয়ারি প্রিয়ভাষিণীকে ল্যাবএইডে ভর্তি করা হয়।
ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী ১৯৪৭ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি খুলনায় জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৭১ সালে তিনি পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে নির্যাতিত হন।
স্বাধীনতাযুদ্ধে অবদানের জন্য ২০১৬ সালে বাংলাদেশ সরকার তাকে মুক্তিযোদ্ধা খেতাব দেয়। এর আগে ২০১০ সালে তিনি বাংলাদেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান স্বাধীনতা পদক পান। ২০১৪ সালে অমর একুশে গ্রন্থমেলায় তার আত্মজৈবনিক গ্রন্থ ‘নিন্দিত নন্দন’ প্রকাশিত হয়।

Leave a Reply